Tuesday, February 27, 2024

HIV-AIDS: মারণ রোগ এডসের এবার রামবাণ টিকা, দাবি ইসরাইলি বিজ্ঞানীদের

এডের মত মারণ রোগ থেকেও মুক্তি, সম্প্রতি এমনই দাবি করেছেন ইজরায়েলের গবেষকরা। এইচআইভি (HIV-AIDS) রোগের টিকা আবিষ্কারের দাবি জানিয়ে একটি গবেষণা প্রকাশিত হয়েছে বিশ্ব বিখ্যাত নেচার পত্রিকায়, সেখানে জানোনো হয়েছে জিন এডিটিং পদ্ধতির মাধ্যমে তৈরি হয়েছে এই ঔষধি।

সারাবিশ্বে প্রায় ৩৮ মিলিয়নেরও বেশি মানুষ এই রোগে সংক্রমিত। প্রাথমিক ভাবে এই রোগ শিম্পাঞ্জির থেকে সৃষ্টি হয় ও ১৮০০ সালের প্রথম দিকে ধরা পড়ে। UNAIDS এর একটি সমীক্ষায় দেখা গেছে ২০১৮ সালেই নতুন করে সংক্রমিত হয়েছে ১.৭ মিলিয়ন মানুষ ও ৭৭০০০৯ জনের মৃত্যু হয়েছে।

লন্ডনের সাপ্তাহিক বিজ্ঞান পত্রিকা নেচার এ ৯ই জুন প্রকাশিত একটি গবেষণায় ইজরায়েলের তেল আভিভ বিশ্ববিদ্যালয়ের ফ্যাকাল্টি অফ লাইফ সাইন্সের নিউরোলজি বায়োকেমিস্ট্রি ও বায়োফিজিক্স গবেষকরা একটি মাত্র ইনজেকশনের মাধ্যমে এইডসের মতো অতি সংক্রামক ব্যাধির নিরাময় করা সম্ভব বলে দাবি করেন। বিজ্ঞানীরা জিন এডিটিং পদ্ধতি মাধ্যমে বি টাইপ শ্বেত রক্ত কনিকার মধ্যে এইচআইভি প্রতিরোধক এন্টিবডি সৃষ্টি করছেন।

এইচআইভি সংক্রমণে পুরুষদের প্রাথমিক লক্ষণগুলো হল, আক্রান্ত ব্যক্তি খুব দুর্বল হয়ে পড়েন, উপসর্গহীন ভাবে অসুস্থ হয়ে পড়েন, এছাড়াও কখনও তীব্র জ্বরের সারা শরীরে ব্যথা অনুভব করেন। মহিলাদের ক্ষেত্রে দ্রুত শারীরিক ওজন কমে যাওয়ার সঙ্গে সামান্য জ্বর অনুভব হয় প্রাথমিক ক্ষেত্রে। এইচআইভি একবার রোগীর শরীরে প্রবেশ করলে তা রোগীর অনাক্রমতা বা ইমিউনিটি ব্যবস্থাকে নষ্ট করে ফেলে। যার ফলে রোগী এর দ্বারা ইমিউনো ডেফিসিয়েন্সি সিনড্রোম আক্রান্ত হয় যা এইচআইভি নামে পরিচিত। এতদিন পর্যন্ত এর সঠিক চিকিৎসা পদ্ধতি জানা ছিলো না যার দ্বারা এইচআইভি (HIV-AIDS) সম্পূর্ণ চিকিৎসা সম্ভব, তবে গবেষকদের এই দাবি প্রমাণিত হলে চিকিৎসা ক্ষেত্রে তা নতুন যুগের সূচনা করবে।

আরও পড়ুন

মাথায় অসহ্য যন্ত্রণা হচ্ছে? জেনে নিন আপনার সমস্যা সাধারণ নাকি মাইগ্রেনের সমস্যা… 

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Stay Connected

3,541FansLike
3,210FollowersFollow
2,141FollowersFollow
2,034SubscribersSubscribe
- Advertisement -

Latest Articles