Friday, February 23, 2024

Harleen Deol: উড়ন্ত ক্যাচ নিয়ে সকলের মনজয় হরলীনের, জেনেনিন তাঁর ক্রিকেটার হওয়ার কাহিনী

বাউন্ডারি লাইনে অবিশ্বাস্য ক্যাচ ধরে ভারতীয় ক্রিকেট প্রেমী থেকে আমজনতা সকলের মন জয় করে নিলেন ভারতীয় মহিলা ক্রিকেটার হরলীন দেওল (Harleen Deol)। সোশ্যাল মিডিয়ায় মুহূর্তের মধ্যে ভাইরালও হয়ে গিয়েছে হরলীনের এই ক্যাচ ধরার ভিডিও। এখন সবথেকে বেশি চর্চার বিষয় হল হরলীন দেওলের সুপার ক্যাচ। ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ভারত-ইংল্যান্ড টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে ভারত হেরে গেলেও চারদিকে আলোচনার বিষয় হয়ে উঠেছে হরলীনের দুর্দান্ত ক্যাচ।

ইংল্যান্ডের খেলোয়াড় অ্যামি জোনস ১৯ তম ওভারে একটি বল ছয় মারতে গিয়েছিলেন, সেই সময় বাউন্ডারি লাইনে থাকা হরলীন বলটি ক্যাচ ধরে উপরের দিকে ছুঁড়ে দেন। তিনি বুঝতে পেরেছিলেন বাউন্ডারি লাইনের বাইরে বেরিয়ে যেতে পারেন, তাই বলটি উপরের দিকে ছুঁড়ে দিয়ে মুহূর্তের মধ্যে বাউন্ডারি লাইনের ভেতরে ঢুকে শূণ্যে ভেসে থাকা বলটিকে ক্যাচ ধরে ফেলেন। এই পুরো ঘটনাটি চোখের পলকে ঘটেছিল এবং কয়েক মিনিটের মধ্যেই হরলীনের এই সুপার ক্যাচের ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়।

ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে এই টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ভারত হেরে গেলেও হরলীনের এই ক্যাচটি স্মরণীয় হয়ে থাকবে। এর আগে ভারতের সঙ্গে ইংল্যান্ডের হওয়া তৃতীয় ওয়ান ডে ম্যাচে স্মৃতি মান্ধানা (Smriti Mandhana) বাউন্ডারিতে এমন চমকপ্রদ ক্যাচ ধরেছিলেন, যা নিয়ে বেশ আলোচনা হয়েছিল।

প্রসঙ্গত, হরলীন দেওল ১৯৯৮ সালের ১ জুন ভারতের চণ্ডীগড়ে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ক্রিকেট খেলা শুরু করেছিলেন সাত বছর বয়সে থেকে। ছোটোবেলায় তিনি তাঁর ভাই এবং অন্যান্য স্থানীয় ছেলেদের সঙ্গে ক্রিকেট খেলতেন। তারপর তিনি স্কুলে ক্রিকেট খেলতে শুরু করেন। বারো বছর বয়সে একটি ডিস্ট্রিক ম্যাচ খেলার সময় কোচ আরপি সিং-এর দৃষ্টি আকর্ষণ করেছিলেন তিনি, যিনি পরে তাঁকে রাজ্য দলে নির্বাচিত করেছিলেন।

তিনি অফ স্পিনে অভ্যস্ত ছিলেন, তবে তাঁর কোচ তাঁকে অফ স্পিনের পরিবর্তে আরও বেশি লেগস্পিন চেষ্টা করার পরামর্শ দিয়েছিলেন। তারপর ১২ বছর বয়সে, তিনি পাঞ্জাবের হয়ে ডোমেস্টিক ক্রিকেটে পা রাখেন। শীঘ্রই, তাঁর বাবা চাকরি সূত্রে হিমাচল প্রদেশে বদলি হন, যেখানে তিনি পরে ছুটি কাটাতে গিয়েছিলেন। সেখানে অল্প বয়সী মেয়েদের যে সুযোগসুবিধা দেওয়া হয় তা দেখে তিনি মুগ্ধ হয়েছিলেন, তাই তিনি তাঁর বাবার সঙ্গে কথা বলে হিমাচল প্রদেশে থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। এরপর তিনি হিমাচল প্রদেশের হয়ে ক্রিকেট খেলতে শুরু করেছিলেন।

১৩ বছর বয়সে হরলীন দেওল ‘এইচপিসিএ’র হয়ে ক্রিকেট খেলতে শুরু করেছিলেন। ২০১৩ সালে, তিনি হিমাচল প্রদেশের হয়ে টি-টোয়েন্টিতে আত্মপ্রকাশ করেছিলেন। তারপর, ২০১৪ সালে, তিনি এইচপিসিএ-র হয়ে লিস্ট-এ কেরিয়ার শুরু করেছিলেন। পরে, ২০১৫ সালে, অনূর্ধ্ব -১৯ ক্রিকেটে নর্থ জোনের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন তিনি। ২০১৯-এর ২২ ফেব্রুয়ারী, মিতালি রাজ অধিনায়ক থাকাকালীন হরলীন দেওলের ওডিআই-এ অভিষেক ঘটে। ২০১৯-এর ৪ মার্চ, হরলীন দেওল ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে টি-টোয়েন্টিআই-এ আত্মপ্রকাশ করছিলেন। সেই ম্যাচে তিনি ১০ বলে ৮ রান করেন। খুব শীঘ্রই, তিনি আত্মপ্রকাশ করেছিলেন ট্রেলব্লাজারসদের (Trailblazers) হয়ে আইপিএল টি-টোয়েন্টি চ্যালেঞ্জে, যেখানে তিনি ৪৪ বলে ৩৬ রান করেছিলেন।

আরও পড়ুন

জীবন যুদ্ধে মাথা নত না করে, ইতিহাস সৃষ্টিকারী এক দৌড়বিদ-এ উন্নীত হয়েছিলেন মিলখা

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Stay Connected

3,541FansLike
3,210FollowersFollow
2,141FollowersFollow
2,034SubscribersSubscribe
- Advertisement -

Latest Articles