Tuesday, May 21, 2024
More

    বিক্রান্ত এই ভরসা ভারতীয় নেভির, জানিয়ে দিলেন আর. হরি কুমার

    আই.এন.এস বিক্রান্তেই সন্তুষ্ট ইন্ডিয়ান নেভি। IAC 2 এর এক্ষুনি প্রয়োজন নেই। গোবাল ইস্যু সমঝোতায় বিক্রান্তের রিপিট কপিই যথেষ্ট। সম্পূর্ণ ভারতীয় প্রযুক্তিতে তৈরি বিক্রান্ত শুধু ইন্ডিয়ান নেভির গর্ব’ই নয় মহাসাগরের দ্বাররক্ষী। গত ৪ ঠা ডিসেম্বর নেভি’ডে উপলক্ষে নেভির অ্যাডমিরাল জানিয়েছেন নতুন করে IAC 2 এর মতো অত্যাধুনিক এয়ারক্র্যাফট ক্যারিয়ারের অর্ডার স্থগিত রেখে আরও একটি IAC 1 অর্ডার দেওয়া হতে পারে। আই.এন.এস বিক্রান্ত (INS Vikrant) এর পুনরায় উপস্থিতি মহাসাগরে ভারতের স্থান আরও মজবুত করবে।

    তিন দিক সমুদ্রে ঘেরা আমাদের দেশ ভারত। এদেশে ব্যাবসা, বাণিজ্য বা আন্তর্জাতিক সম্পর্ক যেকোনো দিকেই সমুদ্রের গুরুত্ব অপরিসীম। এই সূত্রে নেভিকে মজবুত করতে এয়ারক্র্যাফট ক্যারিয়ারের প্রয়োজন খুবই স্বাভাবিক। এই উদ্দেশ্যে দেশের সুরক্ষায় সমুদ্রপথে সীমানা রক্ষা করতে ব্রিটেন থেকে আমদানি হয় এইচ.এম. এস. হারকিউলিস এয়ারক্র্যাফট ; যার ভারতীয় নাম আই.এন.এস বিক্রান্ত (INS Vikrant) । ১৯৫৭-১৯৯৭ পর্যন্ত সগৌরবে মহাসাগরে দাপট বজিয়ে রাখে ভিক্রান্ত । এর মধ্যে উল্লখযোগ্য ১৯৭১ এর ভারত পাকিস্থান যুদ্ধ।

    বিক্রান্ত ও বিরাট অচল হয়ে পড়লে ভারতের মহাসাগরীয় তটরেখায় পাহারা দিতে তৎকালীন ইউ.এস.এস.আর এর ইউক্রেন থেকে নিয়ে আসা হয় আই.এন.এস বিক্রমাদিত্য (INS Vikramaditya) কে। এই পর্বে এটিই ছিল ভারতের একমাত্র সামুদ্রিক এয়ারক্রাফট ক্যারিয়ার। ২৮৪ মিটার লম্বা বিক্রমাদিত্যকে ভাসমান শহর বলেও ডাকা হয়ে থাকে । এদিকে ভারতের এতো বড় জল সীমানায় একটি মাত্র যুদ্ধ জাহাজ এর ওপর নির্ভর করা নেভির পক্ষে কঠিন হচ্ছিল।

    সীমানায় নজরদারি প্রখর করতে ও ভারতীয় নেভির চাহিদা মেটাতে এবার দেশীয় প্রযুক্তির ওপর নির্ভর করে নতুন রূপে আই.এন.এস বিক্রান্ত (INS Vikrant) বানানো হয় । বর্তমানে এটি ভারতের দ্বিতীয় সামুদ্রিক এয়ারক্রাফট ক্যারিয়ার। প্রায় ২০ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে সম্পূর্ণ ভারতীয় প্রযুক্তিতে তৈরী করা হয় আই.এন.এস বিক্রান্ত (INS Vikrant)। দৈর্ঘ্যে ২৬০ মিটার লম্বা ও ৬২ মিটার চওড়া ভিক্রান্ত ৪০০০০ হার্জার টনেরও বেশি ওজন নিতে সক্ষম । চীনের মত প্রতিবেশী দেশের মোকাবিলা করতে এবং ভারত মহাসাগরে আধিপত্য কায়েম রাখতে বিক্রান্ত বর্তমানে ভারতীয় নেভির অন্যতম পরিচয়।

    আর্মির তরফে এতো বড়ো সামুদ্রিক সীমানা সামাল দিতে নুন্যতম তিনটি যুদ্ধজাহাজের দাবি রাখা হয়েছে। এই সূত্রে বানানো হবে দ্বিতীয় বিক্রান্ত বা INA 2 যা হবে বিক্রন্তের থেকেও অধিক ক্ষমতাশালী ও ভারতের তৃতীয় যুদ্ধ জাহাজ।

    এই সূত্রে গত ৪ ঠা ডিসেম্বর নেভি দিবসের দিন, ভারতীয় নেভির অ্যাডমিরাল আর. হরি কুমার জানান, নতুন প্রযুক্তিতে জাহাজ তৈরী করতে অনেক সময়ের প্রয়োজন। তাই বর্তমানে পুরনো রেকর্ড এর পুনরাবৃত্তি করার দিকেই হাঁটতে চলেছে ইন্ডিয়ান নেভি। বিক্রান্ত এর দক্ষতায় সন্তুষ্ট নেভি। তাই এই মুহূর্তে নেভির ক্ষমতা মজবুত করতে নতুন রূপের বিক্রান্ত এর চেয়ে আগের মডেল এরই আরও একটি INA 1 বা বিক্রান্তের অর্ডার দেওয়া হবে।

     

    Related Articles

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here

    This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

    Stay Connected

    3,541FansLike
    3,210FollowersFollow
    2,141FollowersFollow
    2,034SubscribersSubscribe
    - Advertisement -

    Latest Articles